একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি নির্দেশনা টেলিটক থেকে অনলাইনে জেনে নিন - পিসি হেল্প সেন্টার (বাংলাদেশ)
Latest Update

একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি নির্দেশনা টেলিটক থেকে অনলাইনে জেনে নিন

Linux Host Lab Ads

শুরু হয়েছে একাদশ শ্রেনীতে ভর্তি কার্যক্রম। এবার কলেজে গুলোতে ভর্তি নিচ্ছে অনলাইনে মার্ধমে। ভর্তি জন্য আবেদন করতে হবে টেলিটক প্রি-প্রেইড মোবাইল থেকে। প্রিয় টেকের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো একাদশ শ্রেনীর কলেজে গুলোতে ভর্তি নিয়ম-কানুন

প্রথমে আপনার মোবাইল Message অপশনে গিয়ে CAD কাঙ্কিত কলেজের EIIN কাঙ্কিত গ্রুপের নামের প্রথম অক্ষর এসএসসি/সমমানের পরীক্ষা পাসের বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষররোল নম্বর এসএসসি/সমমান পরীক্ষা পাসের সনশিফটের নামভার্সনকোটার নাম লিখে Send করতে হবে 16222 নম্বরে।

উদাহরণ : CAD 696954 S DHA 123456 2012 MFQ (এখানে 696954 কাঙ্কিত কলেজের EIIN, S কাঙ্কিত গ্রুপের নামের প্রথম অক্ষর, DHA – এসএসসি পরীক্ষার পাসের বোর্ডের নামের প্রথম তিন অক্ষর, 123456 আবেদনকারীর এসএসসি/ সমমানের পরীক্ষা পাশের রোল নম্বর, এসএসসি/ সমমানের পরীক্ষা পাসের সন ২০১২, M শিফ্টের নামের প্রথম অক্ষর, B ভার্সন এর প্রথম অক্ষর, FQ মুক্তিযোদ্ধা কোটা।

Linux Host Lab Offer

ভর্ভিচ্ছু গ্রুপের ক্ষেত্রে : Science এর জন্য S, Business Studies এর জন্য B, Home Economics এর জন্য E, Islamic Studies এর জন্য I লিখতে হবে।

র্ভাসনের ক্ষেত্রে : বাংলা ভার্সনের ক্ষেত্রে B, English Verision এর জন্য E লিখতে হবে।

শিফটের ক্ষেত্রে : Morning এর জন্য M, Day এর জন্য D, Evening এর জন্য E, এবং আবেদনকৃত কলেজের যদি কোন শিফট্ না থাকে তবে N লিখতে হবে।

কোটার ক্ষেত্রে : মুক্তিযোদ্ধা কোটার জন্য FQ এবং শিক্ষা মন্ত্রাণালন ও শিক্ষা মন্ত্রাণালয় অধিনস্ত দপ্তরসমূহ, স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/কর্মচারী ও প্রতিষ্ঠানের গভর্নিং বডির সন্তানদের কোটার জন্য FQ এবং সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের কর্তৃক ঘোষিত বিশেষ কোটার জন্য SQ লিখতে হবে। কোন শিক্ষার্থী একাধিক কোটার আবেদন করার যোগত্যা থাকলে কমা (,) দিয়ে একাধিক কোটার উল্লেখ্য করতে হবে। যেমন কোন শিক্ষার্থী মুক্তিযোন্ধা এবং বিশেষ কোটায় আবেদনের যোগ্যতা থাকলে তাকে কোটার জন্য FQ,SQ লিখতে হবে। উল্লিখিত কোটার আওতাধীন না হলে কোটার অপশনে কিছু লেখার প্রয়োজন নেই।

কোন প্রতিষ্ঠানের একই সাথে স্কুল ও কলেজ শাখা চালু থাকলে ঐ প্রতিষ্ঠান হতে এসএসসি পাশকৃত সকল শিক্ষার্থী উক্ত ভর্তির জন্য এসএসএম এর মাধ্যমে আবেদন করতে পারবে।ফিরতি এসএমএস এর আবেদনকারীর নাম, কলেজের EIIN গ্রুপের নাম এবং শিফটসহ ফী বাবদ কত টাকা কেটে নেয়া হবে, তা জানিয়ে একটি PIN প্রধান করা হবে। আবেদন সম্মত থাকলে Message অপশনে গিয়ে CAD Yes PIN Contact Number (নিজের ব্যবহৃত যে কোন মোবাইল অপারেটর এর নম্বর) লিখে Send করতে হবে 16222 নম্বরে।

শর্তবলী :
১. এক জন আবদেনকারী একাধিক কলেজে/ একই কলেজের একাধিক গ্রুপে/ একই কলেজের একাধিক শিফটে আলাদা ভাবে আবেদন করতে পারবে, তবে প্রতিক্ষেত্রেই ফি বাবদ ১২০ টাকা কেটে নেয়া হবে।
২. এসএসএম এর মাধ্যমে ভর্তির আবেদন ০৬ জুন তারিখ রাত ১১. ৫৯ মিনিট পর্যন্ত করা যাবে।
৩. পুন:নিরীক্ষণের মাধ্যমে যাদের ফল পরিবর্তন হবে তাদের আবেদন গ্রহনের তারিখ ১৪ জুন পর্যন্ত। ভর্তির জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীদের মেধাক্রম ১৭ জুন তারিখে এসএসএম, স্ব স্ব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নোটিশ বোর্ড/ওয়েবসাইট এবং www.educationboard.gov.bd এবং স্ব স্ব বোর্ডের নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে জানানো হবে। ভর্তি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম মন্ত্রাণালয় ও বোর্ড প্রদত্ত নীতিমালা অনুসরণ করা হবে।EIIN প্রাপ্তি : এসএমএস এর মাধ্যমে ভর্তির জন্য বোর্ড কর্তৃক নির্বাচিত কলেজসমূহের তালিকা ও EIIN সংশ্লিষ্ট কলেজ/ বোর্ড সমূহের ওয়েবসাইট এবং কলেজ ও বোর্ড সমূহ প্রদত্ত বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানা যাবে।

এক দিনে ১৫ হাজার আবেদন জমা

একাদশ শ্রেনীর অনলাইনে ভর্তি শুরু দিন থেকে ব্যাপক সারা পাওয়া গেছে। প্রথম দিনে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত শুধু অনলাইনে ১৫ হাজার আবেদন জমা পড়েছে।

যেসব কলেজে ৬০০ আসন আছে, এবার সেগুলোর বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে ভর্তির কাজ করতে হচ্ছে। আর তিন শতাধিক আসন থাকা কলেজগুলোতেও সনাতন পদ্ধতির পাশাপাশি অনলাইনে আবেদন করা যাচ্ছে। বাকিগুলো সনাতন পদ্ধতিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করতে পারবে।
এবার শুধু ঢাকা বোর্ডের অধীন ১৫২টি কলেজে অনলাইনে ভর্তির কাজ চলছে। এর মধ্যে ৪২টি কলেজ ঢাকা মহানগরে অবস্থিত। ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটেও আবেদনের পদ্ধতি দেওয়া আছে।

অনলাইনে ভর্তি জানতে চাইলে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের জ্যেষ্ঠ সিস্টেম অ্যানালিস্ট মনজুরুল কবীর বলেন, অনলাইনে ভর্তির এই প্রক্রিয়া চালুর ফলে শিক্ষার্থীরা মেধা ও যোগ্যতার ভিত্তিতে ভর্তির সুযোগ পাবে।
তিনি জানান, আগামী ৬ জুন পর্যন্ত ভর্তির জন্য আবেদন বা খুদে বার্তা গ্রহণ করা হবে। তবে এসএসসির ফল পুনর্নিরীক্ষণের ক্ষেত্রে যাদের ফল পরিবর্তন হবে, তারা ভর্তির আবেদনের সময় পাবে আগামী ১৪ জুন পর্যন্ত। বিলম্ব ফি ছাড়া ২৮ জুন ও বিলম্ব ফিসহ ভর্তির শেষ সময় ১২ জুলাই। ক্লাস শুরু হবে ১ জুলাই থেকে। আগের মতোই জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি করা হবে। কোনো ভর্তিপরীক্ষা হবে না।

১২০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কোনো ছাত্রছাত্রীর কাছ থেকে অনুমোদিত ফির অতিরিক্ত অর্থ গ্রহণ করা যাবে না এবং সব ফি রশিদের মাধ্যমে গ্রহণ করতে হবে। তবে কোনো কোনো অভিভাবক বলছেন, যেসব কলেজে অনলাইনে আবেদন নেওয়া হচ্ছে, সেগুলোতে মুঠোফোনের খুদে বার্তা খরচ ও বোর্ডের খরচের বাইরে কলেজের জন্য আলাদা খরচ নেওয়া যৌক্তিক নয়। কারণ, অনলাইনে আবেদনের যাচাই-বাছাইয়ে কলেজগুলোর সেই অর্থে ভূমিকা থাকবে না। টেলিটকের সঙ্গে মিলে বোর্ড কর্তৃপক্ষ এই কাজটি করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ক্যাপচাটি লিখুন * Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.