ডাটা হারিয়ে গেছে? বা হারিয়ে যাওয়ার ভয় আছে? মোবাইল বা কম্পিউটার ইউজার সবার জন্য - পিসি হেল্প সেন্টার (বাংলাদেশ)
Latest Update

ডাটা হারিয়ে গেছে? বা হারিয়ে যাওয়ার ভয় আছে? মোবাইল বা কম্পিউটার ইউজার সবার জন্য

Linux Host Lab Ads

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন সবাই? আশা করি সবাই ভালো আছেন, আজ আপনাদের সাথে কিছু সফটওয়ারের পরিচয় করিয়ে দিবো।

ডাটা রিকোভারি

যারা নতুন ইউজার তারা হয়তো অনেকেই জানেন না যে, আপনার কম্পিউটারের অথবা মোবাইলের মেমরীর অথবা পেনড্রেরাইভের কোন ডাটা/তথ্য যদি ডিলেক্ট হয়ে যায় তাহলে তা আবার ফিরিয়ে আনা সম্ভব, নতুনরা হয়তো চমকে উঠতে পারেন, আর পূর্বে যারা জানেন তারা ঠান্ডা বসে আছেন 😛 , নতুনদের চমকে উঠার কিছু নেই, আর এটা আশ্চার্য জনকও কিছু নয়, এটা খুব সহজেই ফিরিয়ে আনা সম্ভব, আর একটি কাজটির নাম হলো রিকোভারি, তাই আপনার যদি কখনও কোন ডাটা/তথ্য/ফাইল ডিলেক্ট হয়ে যায় এবং তা ফিরিয়ে আনার প্রয়োজন হয় তাহলে আপনি গুগলে How to Recovery my loss data এই রকম বা এই রকম সিমিলার কোন টাইটেলে যদি সার্চ দেন তাহলে অনেক টিপ্স পাবেন, আবার অনেক সফটওয়ারও পাবেন, যা দেখে ব্যবহার করে আপনি আপনার হারিয়ে যাওয়া তথ্য/ফাইল ফিরে পেতে পারেন, কিন্তু সব সফটওয়ারের কাজ এক নয়, কোন কোন সফটওয়ার বেশি ডাটা এবং অক্ষত ভাবে ফিরিয়ে আনতে পারে, আবার কিছু কিছু সফটওয়ার বেশি ডাটা এবং বেশি অক্ষত অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে পারে না, আজ আপনাদের সাথে এমন’ই একটি সফটওয়ার শেয়ার করবো, যা অনেক কার্যকরী, এটি আমি নিজে ব্যবহার করেছি এবং  এটার উপরে আস্থা আছে তাই এটা আপনাদের সাথে শেয়ার করতেছি। আমি যে সফটওয়ারটি সব সময় ব্যবহার করি তার নাম হলো EaseUS Data Recovery Wizard Professional সফটওয়ারটি নিয়ে আমি পূর্বে একটি টিউটোরিয়াল লিখেছি তাই নতুন করে আবার এখানে কিছু বললাম না। সেই লিখিতো টিউটোরিয়ালটি পড়তে চাইলে এখানে ক্লিক করুন EaseUS Data Recovery Wizard Professional Tutorial

উপরে দেয়া লিংকে গেলে পোষ্টর ভিতরে ১০ টার মত অরিজিনাল লাইন্সেনও পাবেন, যা আপনি ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন, ঐ লাইন্সেন গুলো আমাকে এই সফটওয়ার কোম্পানি থেকেই গিফট করেছিলো, যাতে আমি আমার ঐ পোষ্টের ভিতরে শেয়ার করি, এবং পোষ্টটি যারা পড়বে তারা ওটা ব্যবহার করে সফটওয়ারটির কার্যকরীতা যাছাই করতে পারে। তবে ঐ লাইন্সেন শুধু ব্যবহার করতে পারবেন, কিন্তু কোন প্রিমিয়াম সাপোর্ট তাদের কাছ থেকে পাবেন না। কারন ওটা তারা সম্পূর্ণ ফ্রিতে দিয়েছে।

Linux Host Lab Offer

তাদের বর্তমানে একটি অফার চলতেছে চাইলে দেখতে পারেন, আগামি 31/10/2016 তারিখ পর্যন্ত চলবে, দেখতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

screenshot_3

পার্টিশন

আপনি চাইলেই আপনার পিসি/ল্যাপটপের হার্ডড্রেরাইভ যে কয়টা ড্রেরাইভ আছে তা নিজের মত করে সাজিয়ে নিতে পারেন। বর্তমানে যে সকল আপডেট উইন্ডোস আছে যেমন: Windows 7, Windows 8, Windows 8.1, Windows 10 ইত্যাদি, এই গুলোতে 3/4 টার বেশি ড্রেরাইভ করা যায় না, আপনি যদি উইন্ডোস সেটাপ দেয়ার সময় আপনার হার্ডডিক্স নতুন করে পার্টিশন করতে চান, তখন যখন’ই আপনি সকল ড্রেরাইভ ডিলেক্ট করে আবার নতুন করে করতে যাবেন তখন’ই দেখবেন 3/4টা তৈরী করার পরে আবার নতুন করে তৈরী করার অপশন আসে না। আর এই কাজটি’ই আপনি এই সফটওয়ারটি দিয়ে করতে পারবেন, আপনি নতুন উইন্ডোস দিন বা বর্তমান রানিং কম্পিউটারেও চাইলে করতে পারবেন, কোন ড্রেরাইভ থেকে যায়গা কোমানো এবং সেটা অন্য ড্রেরাইভের  সাথে যোগ করা, মানে রিসাইজ করা, অথবা নতুন করে ড্রেরাইভ তৈরী করা ইত্যাদি। মনে করুন আপনার পিসিতে 4 টা ড্রেরাইভ আছে, এর মধ্যে একটিতে আছে 150 জিবি, আর একটিতে আছে শুধু 50 জিবি, এখন আপনি চাচ্ছেন 150 জিবির ড্রেরাইভ থেকে 50 জিবি নিয়ে শুধু 50 জিবি যে ড্রেরাইভে আছে সেটার সাথে যোগ করবো, মানে দুটি ড্রেরাইভেই 100 জিবি করে হবে, এটি আপনি সহজেই করতে পারবেন, আর একই কাজটি করতে আপনার কোন ডাটার ক্ষতি হবে না, বা নতুন করে উইন্ডোসও সেটাপ দিতে হবে না, আবার চাইলে আপনি অন্য ড্রেরাইভে ঐ 50 জিবি যোগ না করে নতুন করে আর একটি ড্রেরাইভ তৈরী করতে পারবেন, এই রকম আপনার যা ইচ্ছা করতে পারবেন, এই সফটওয়ারটির মাধ্যমে, সফটওয়ারটির নাম হলো EaseUS Partition Master Professional এটির ট্রেরাইল ভার্সন আছে, চাইলে ডাউনলোড করে পরীক্ষা মূলক কাজ করে দেখতে পারেন। ট্রেরাইল ভার্সন ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন EaseUS Partition Master Professional

সংক্ষেপে যদি  বলি তাহলে এক নজরে দেখে নিতে পারেন সফটওয়ারটির ফিচার

screenshot_4

যদিও এই সফটওয়ারটি নিয়ে এখনও সম্পূর্ণ ব্যবহারবিধীর উপরে কোন টিউটোরিয়াল আমার লেখা হয় নি, কিন্তু আপনি চাইলে এই টিউটোরিয়াল গুলো দেখতে পারেন, এই গুলো মোটামুটি এই সফটওয়ারের সিমিলার।

 

ব্যাকআপ এবং রিস্টোর

আশা করি সাব টাইটেল দেখেই বুঝতে পারছেন এখানে কি বলবো, তারপরও যারা বুঝতে পারেন নাই তাদের জন্য একটু প্যাচাতেই হয় 😛 😀 B| আপনি চাইলে আপনার পিসির ব্যাকআপ রাখতে পারেন, আবার অনা-আসেই রিস্টোর করতে পারেন। মানে আপনি চাইলে আপনার পিসির ব্যাকআপ তৈরী করে সেটা কোথাও সেইভ করে রাখতে পারেন, মনে করুন আপনি আপনার প্রয়োজনীয় সকল সফটওয়ার সেটাপ করেছেন, তারপর চাইলে আপনার সি ড্রেরাইভের একটি ব্যাকআপ তৈরী করে রাখতে পারেন, এবং সেটা অন্য কোথায় সেইভ রাখতে পারেন, কোন সিডি/ডিভিডি রাইট করে রাখতে পারেন, বা পেনড্রেরাইভে রাখতে পারেন, আপনার ইচ্ছা, বা আপনার ঐ কম্পিউটারেই রাখতে পারেন কিন্তু রাখতে হবে অন্য ড্রেরাইভে, মানে সি ড্রেরাইভে’ই রাখা যাবে না। তারপর কখনও আপনার পিসির উইন্ডোসে সমস্যা হলে, বা উইন্ডোস সেটাপ দেয়ার দরকার হলে তখন আবার আপনাকে নতুন করে উইন্ডোস দিয়ে আবার একে একে আপনার সকল প্রয়োজনীয় সফটওয়ার ইন্সটল করতে হতো, এখন আর আপনার এটা করতে হবে না, নতুন করে উইন্ডোসও সেটাপ দিতে হবে না, শুধু আপনার ব্যাকআপটি রিস্টোর করে দিবেন, তাহলেই পূর্বের মত আপনার কম্পিউটার হয়ে যাবে, যখন আপনি এই ব্যাকআপটি তৈরী করেছেন তখন যেভাবে যেটা সেটাপ ছিলো ঠিক সেভাবে হয়ে যাবে, এবং সময়ও আপনার বেঁচে যাবে সাথে কষ্টও কম হবে। এই জন্য আপনি ব্যবহার করতে পারেন EaseUS Todo Backup Home সফটওয়ারটি, চাইলে এটির ট্রেরাইল ভার্সন ডাউনলোড করে পরীক্ষা মূলক ভাবে ব্যবহার করতে পারেন, ট্রেরাইল ভার্সন ডাউনলোড করতে চাইলে এখানে ক্লিক করুন EaseUS Todo Backup Home

screenshot_5

এই সফটওয়ারটির সিমিলার হিসেবে আমার এই পোষ্টটি দেখতে পারেন।

এক্সপি সহ সকল সফটওয়ার ইস্টল করুন মাত্র ২মিনিটে,আপনার কম্পিউটারের Backup রাখুন খুব সহজে

ডাটা ট্রেন্সফার

যদি আপনি নতুন কম্পিউটার কিনে থাকেন তাহলে চাইলেই আপনার পুরোনো কম্পিউটার থেকে সহজেই সকল ডাটা/সফটওয়ার ট্রেন্সফার করে নিয়ে আসতে পারবেন, সাথে যে সফটওয়ার যেভাবে সেটিং করা ছিলো হুবাহু আনতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই।

আপনার হার্ড ড্রাইভে আপগ্রেড করবেন? স্থানীয় ডিস্কের মধ্যে নিখুত ভাবে ডিস্ক অ্যাপ্লিকেশন স্থানান্তর করে ব্যবহার করতে পারবেন।

64 বিট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম 32 বিট উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেম থেকে তথ্য এবং অ্যাপ্লিকেশন স্থানান্তর করতে পারবেন।

যখন Windows Xp থেকে অন্য কোন অপারেটিং সিস্টেমে আপডেট করবেন যেমন: Vista/7/8/8.1/10 বিশেষ করে Windows 10  আপডেট অথবা ইন্সটল করার সময় ফাইল/প্রোগ্রাম ট্রেন্সফার করতে পারবেন।


  • PC Transfer via Network Connection

    Connect two PCs on the same LAN to transfer files/programs to target machine directly.


  • PC Migration via Image File

    Create image file and transfer what you want to take with you to new PC fast, particularly useful for Windows in-place upgrade.


  • Native Transfer

    Transfer all updated applications between local disks easier and make full use of local disk space.

সফটওয়ারটির নাম EaseUS Todo PCTrans Pro , আপনি চাইলে এটার ট্রেরাইল ভার্সন ডাউনলোড EaseUS Todo PCTrans Pro করে পরীক্ষা মূলক ভাবে ব্যবহার করে দেখতে পারেন।

 

সফটওয়ার ব্যাকআপ/শেয়ারিং

সহজে ফাইল সিঙ্ক/ব্যাকআপ সফ্টওয়্যার ব্যাকআপ সব ফাইল এবং একাধিক অবস্থানে থেকে রিসোর্স শেয়ারিং জন্য ফাইল বাই ফাইল ফোল্ডার সহ সুন্দর করে সাজিয়ে রাখতে পারবেন। এই কাজটি করতে পারবেন EaseUS EverySync সফটওয়ারটি দিয়ে।

মোবাইল থেকে ডাটা রিকোভারি

উপরে ডাটা রিকোভারি নিয়ে লিখেছি, কিন্তু ওটা ছিলো পিসি/ল্যাপটপে ব্যবহারের জন্য, তাই আবার রিকোভারি কি বা কেন এটা নিয়ে বকবক করলাম না, এটা চাইলে আপনি মোবাইলেও করতে পারবেন, হোক সেটা Android অথবা iPhone , মোবাইলের জন্য ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন।

সফটওয়ারটির নাম EaseUS iOS Data Recovery

Android ব্যবহার কারিদের জন্য এখানে

iPhone ব্যবহার কারিদের জন্য এখানেআর এই সব কিছুর একটি অফার চলতেছে, চাইলে দেখে আসতে পারেন, এখানে কিছু ফ্রি লাইন্সেস পাবেন, এটা দিয়ে শুধু ব্যবহার করতে পারবেন, কোন টেকনিক্যাল সাপোর্ট পাবেন না, কারন এই লাইন্সেস ফ্রি।

অফার দেখতে এখানে ক্লিক করুন Halloween Campaign

ফ্রি লাইন্সেসে শর্ত

কোন ফ্রি টেকনিক্যাল সাপোর্ট পাবেন না।

ফ্রিতে আপডেট ভার্সন পাবেন না।

রিসেট করতে পারবেন না।

সিমীত সময়ের জন্য একটিভ করতে পারবেন এই ফ্রি লাইন্সেস ব্যবহার করে।

One thought on “ডাটা হারিয়ে গেছে? বা হারিয়ে যাওয়ার ভয় আছে? মোবাইল বা কম্পিউটার ইউজার সবার জন্য”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

ক্যাপচাটি লিখুন * Time limit is exhausted. Please reload CAPTCHA.